সেপ্টেম্বর 27, 2022

আরবিআই: অর্থ মন্ত্রক, শীর্ষ ব্যাঙ্ক থেকে আশাব্যঞ্জক বার্তা

1 min read

The facade of the Reserve Bank of India (RBI) head office in Mumbai on October 29, 2013. India's new central bank governor has hiked the key interest rate for a second month running, disregarding calls for lower borrowing costs as he remains focused on battling high inflation. AFP PHOTO/ PUNIT PARANJPE

সম্প্রতি, মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক, ফেডারেল রিজার্ভের জুলাইয়ের সভার কার্যবিবরণীও সুদের হার বৃদ্ধির ইঙ্গিত দিয়েছে।

আরবিআই গভর্নর শক্তিকান্ত দাস, ক্রেডিট পলিসি সভায় বক্তৃতা করেন, খুচরা বাজারে মুদ্রাস্ফীতির হার অগ্রহণযোগ্যভাবে উচ্চ এবং অস্বস্তিকরভাবে উচ্চ ছিল। এই যুক্তির ভিত্তিতেই তিনি সুদের হার (রেপো রেট, যে হারে আরবিআই বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলিকে ঋণ দেয়) 50 বেসিস পয়েন্ট বাড়ানোর প্রস্তাব করেছিলেন। শুক্রবার সভার কার্যবিবরণীর সারসংক্ষেপ প্রকাশের পর শক্তিকান্তের পর্যবেক্ষণ এলো। জানা যায়, ৩য় থেকে ৫ম পর্যন্ত চলা ক্রেডিট পলিসি কমিটির আলোচনায় অন্য সকল সদস্য তার সাথে একমত পোষণ করেন। বৈঠক শেষে মূল্যস্ফীতি রোধে ৫০ বেসিস পয়েন্ট সুদের হার বৃদ্ধির ঘোষণা দেওয়া হয়। এটি রেপোকে 5.40 শতাংশে নিয়ে যায়। শক্তিকান্ত আরও বলেন, মূল্যবৃদ্ধি ও আর্থিক কর্মকাণ্ড পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করে পর্যায়ক্রমে তাদের পদক্ষেপ অব্যাহত থাকবে।

সম্প্রতি, মার্কিন কেন্দ্রীয় ব্যাংক ফেডারেল রিজার্ভের জুলাইয়ের সভার কার্যবিবরণীও সুদের হার বৃদ্ধির ইঙ্গিত দিয়েছে। মূল্যস্ফীতির উচ্চহার নিয়ে রাশ টানা যতদিন সম্ভব, তারাও সুদের হার বাড়ানোর কথা মাথায় রেখেই যাচ্ছে। যার অর্থ, সারা বিশ্বে ঋণের খরচ বেড়ে যাচ্ছে। যা চাহিদাকে আরও কমিয়ে আনবে। ফলে আর্থিক বৃদ্ধি নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। আমেরিকার জিডিপি ইতিমধ্যেই পরপর দুই প্রান্তিকে কমেছে। মন্দার মুখে পড়তে যাচ্ছেন বলে আশঙ্কা করছেন তারা।

তবে কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রকের প্রকাশিত মাসিক অর্থনৈতিক রিপোর্ট দেশবাসীকে আশ্বস্ত করেছে। সেখানে মন্ত্রণালয়ের দাবি, দাম বাড়ার চাপ কমছে। আর্থিক খাত স্থিতিশীল। পরিষেবা খাত একটি পুনরুজ্জীবন অনুভব করেছে এবং এখন আরও উন্নয়নের পথে রয়েছে। যাইহোক, ভূ-রাজনৈতিক ঝুঁকি এখনও যথেষ্ট উচ্চ বলে বিবেচিত হয়। সেই সঙ্গে বিশ্বের উন্নত অর্থনীতিতে মন্দা অব্যাহত থাকার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।