ডিসেম্বর 7, 2022

টুইটার: টুইটার চুক্তিতে সমস্যা হচ্ছে! ইলন মাস্ক এর আগে পরাগকে বলেছিলেন, কথোপকথন জনসমক্ষে এসেছে

জুন মাসে, ইলন চুক্তি লঙ্ঘনের জন্য টুইটারকে অভিযুক্ত করেছিলেন। এ সময় তিনি বলেছিলেন, চুক্তি না মানা হলে তিনি টুইটার কেনার সিদ্ধান্তও পরিবর্তন করবেন।

ইলন মাস্ক টুইটার না কেনার সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে টুইটার প্রধান পরাগ আগরওয়ালকে তার সমস্যার কথা জানিয়েছিলেন। একটি ফোন বার্তায়, ইলন টুইটারের ভারতের সিইও পরাগকে বলেছিলেন যে টুইটারের আইনজীবীরা তাকে সহযোগিতা করছেন না। এটা অবিলম্বে বন্ধ করা প্রয়োজন।

ইলন তখনও টুইটার না কেনার সিদ্ধান্ত নেননি। তবে তিনি তদন্ত করছেন। টুইটার কেনার আগে, তিনি তার বিষয়বস্তু এবং লুকানো অ্যাকাউন্টের উপর নজর রাখছেন। ইলন আদালতকে বলেন, যে কোনো কোম্পানি কেনার আগে তিনি সব সময় খোঁজখবর নেন। চুক্তিতেও তা উল্লেখ ছিল। কিন্তু টুইটার তাকে সহযোগিতা করেনি। চুক্তি লঙ্ঘনের জন্য সম্প্রতি টুইটারে ইলনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। যার জেরে টুইটারের সিইও পরাগের সঙ্গে ইলনের ফোনালাপ প্রকাশ্যে এসেছে। যেখানে ইলন পরাগকে স্পষ্টভাবে বলেছেন যে টুইটারের আইনজীবীরা উদ্দেশ্যমূলকভাবে তাকে সমস্যায় ফেলার চেষ্টা করছেন। ২৮ জুন করা ফোন বার্তায় মাস্ক পরাগকে লেখেন, “আমি টুইটারের আইনজীবীদের কাছ থেকে সংগঠন সম্পর্কে তথ্য চেয়েছি। কিন্তু তারা সেই বার্তাগুলো ব্যবহার করে আমাকে সমস্যায় ফেলার চেষ্টা করছে। এটা অবিলম্বে বন্ধ করা দরকার।’

উল্লেখ্য, জুন মাসে টেসলা প্রধান টুইটারকে চুক্তি না মানার অভিযোগ এনেছিলেন। সে সময় ইলন বলেছিলেন, চুক্তি না মানা হলে তিনিও টুইটার কেনার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করবেন। মাস্কের অভিযোগ, টুইটার জেনেশুনে তার কোম্পানির তথ্য সংগ্রহের অধিকারে বাধা দিচ্ছে। অন্যদিকে, ইলন টুইটার কেনার সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার পর টুইটার চুক্তি লঙ্ঘনের জন্য মামলা করেছিল। টুইটার আদালতকে বলেছে যে ইলন নিজের ইচ্ছায় সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। চুক্তি অনুযায়ী তাকে টুইটারের শেয়ার কিনতে হবে।