সেপ্টেম্বর 30, 2022

ভুটানের অর্থনীতি: ভুটানের কোষাগারে বৈদেশিক মুদ্রার টান! শ্রীলঙ্কার মতো অবস্থা কি হতে পারে?

1 min read

2021 সালের এপ্রিল পর্যন্ত, ভুটানের বৈদেশিক মুদ্রার পরিমাণ ছিল 11,668 কোটি টাকা। 2021 সালের ডিসেম্বরে তা কমে 7 হাজার 752 কোটিতে দাঁড়িয়েছে।

ভুটানের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ চাপে রয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমছে। ফলে চীন ও ভারতের মধ্যবর্তী এই দেশটি খুব শীঘ্রই অর্থনৈতিক সংকটের মুখে পড়তে পারে বলে কিছু বিশেষজ্ঞ মনে করছেন। দেখা যাচ্ছে যে 2021 সালের এপ্রিল পর্যন্ত ভুটানে 11 হাজার 668 কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা ছিল। কিন্তু 2021 সালের ডিসেম্বরের হিসাব অনুযায়ী, এটি একটি ধাক্কায় 7752 কোটিতে নেমে এসেছে।

800,000 এর কম জনসংখ্যার এই দেশের অর্থনীতি মূলত পর্যটন শিল্পের উপর ভিত্তি করে। কিন্তু কঠোর কোভিড নিয়মের কারণে, মহামারী আবহাওয়ার কারণে ভুটান প্রায় পর্যটক মুক্ত। একই সঙ্গে রাশিয়া-ইউক্রেন দ্বন্দ্বের কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে গম ও তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের একটি অংশ সংকটের মুখে পড়েছে।

প্রশ্ন উঠছে, ভুটান কি শ্রীলঙ্কার মতো হতে চলেছে? শ্রীলঙ্কার কোষাগারে ধীরে ধীরে বৈদেশিক মুদ্রা ফুরিয়ে যাচ্ছে। ব্যাপক অর্থনৈতিক সংকটের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে দেশের জনগণ, রাষ্ট্র-রাজনীতি অশান্ত। আকাশছোঁয়া জিনিসপত্রের দাম। জনরোষের মুখে দেশ ছাড়তে হয়েছে শ্রীলঙ্কার সাবেক প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপাকসেকে। দুর্বল অর্থনীতিকে শক্তিশালী করা না গেলে সুদূর ভবিষ্যতে ভুটানের অবস্থাও শ্রীলঙ্কার মতো হতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট মহলের কেউ কেউ।

তবে ভুটান সরকার ইতিমধ্যেই অর্থনীতি পুনরুদ্ধারে পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছে। সম্প্রতি এক প্রজ্ঞাপনে সেদেশের সরকার বলেছে, কিছু বিশেষ যাত্রীবাহী যান, ভারী মাটির চলমান মেশিন এবং কৃষি যন্ত্রপাতি ছাড়া সব ধরনের যানবাহন আমদানি নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে। ওই দেশের অর্থ মন্ত্রণালয় থেকেও জানানো হয়েছে, এই যাত্রীবাহী যানগুলো আমদানি করা হবে শুধুমাত্র পর্যটন শিল্পে ব্যবহারের জন্য।

ভুটানের স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত বছরের জুন থেকে ভুটান আট হাজারের বেশি বিদেশি গাড়ি আমদানি করেছে। এটাও বৈদেশিক মুদ্রার দরপতনের অন্যতম প্রধান কারণ বলে মনে করা হচ্ছে।